Skip to main content

আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড


ব্যাংকের আকর্ষণীয় ডিপোজিট স্কীমগুলো

মুদারাবা কোটপতি ডিপোজিট স্কীম
হিসাবের মেয়াদমাসিক জমার পরিমাণমেয়াদান্তে সম্ভাব্য প্রাপ্য টাকার পরিমাণ
৩ বছর
২,৩২,০০০
টাঃ ১.০০ কোটি
৪ বছর
১,৬৪,০০০
টাঃ ১.০০ কোটি
৫ বছর
১,২৭,০০০
টাঃ ১.০০ কোটি
৬ বছর
১,০০,০০০
টাঃ ১.০০ কোটি
৭ বছর
৭৮,২০০
টাঃ ১.০০ কোটি
 ১০ বছর
৪৫,৪০০
টাঃ ১.০০ কোটি
১২ বছর
৩৩,২৫০
টাঃ ১.০০ কোটি
১৫ বছর
২১,৮৫০
টাঃ ১.০০ কোটি
১৮ বছর
১৫,৮০০
টাঃ ১.০০ কোটি
২০ বছর
১১,৬৭০
টাঃ ১.০০ কোটি

মুদারাবা প্রবাসী কল্যাণ পেনশন স্কীম
মাসিক কিস্তি
৫ বছর মেয়াদান্তে প্রাক্কলিত মুনাফাসহ মোট জমা
৫ বছর মেয়াদান্তে পরবর্তী ১০ বছরের জন্য সম্ভাব্য মাসিক পেনশন
৩,৬৯০
৩,০০,০০০
৩,৮৮
৬,১৫০
৫,০০,০০০
৬,৪৯০
৮,৬০০
৭,০০,০০০
৯,১০০
১২,৩০০
১০,০০,০০০
১৩,০০০
১৪,৮০০
১২,০০,০০০
১৫,৬৫০


মাসিক মুনাফা প্রদান ভিত্তিক মেয়াদী জমা প্রকল্প 
আমানতের মেয়াদ: ৫ বছর
১ লক্ষ টাকার গুনিতক যেকোন পরিমাণ আমানত এ প্রকল্পের আওতায় গ্রহণযোগ্য
১ লক্ষ টাকার বিপরীতে মাসিক প্রায় ১,০০০ টাকা হারে প্রাক্কলিত মুনাফা দেয়া হয়।


মুদারাবা লাখপতি ডিপোজিট স্কীম
হিসাবের মেয়াদমাসিক জমার পরিমাণমেয়াদান্তে সম্ভাব্য প্রাপ্য টাকার পরিমাণ
৩ বছর
২,৩২৫
টাঃ ১.০০ লক্ষ
৫ বছর
১,২৭৫
টাঃ ১.০০ লক্ষ
৮ বছর
৬৪৫
টাঃ ১.০০ লক্ষ
১০ বছর
৪৫০
টাঃ ১.০০ লক্ষ
১২ বছর
৩৩০
টাঃ ১.০০ লক্ষ

মুদরাবা দ্বিগুন/ তিনগুণ বৃদ্ধি আমানত প্রকল্প
প্রকল্পের মেয়াদ: ৬ বছর ও ৯.৫ বছর
টাকার পরিমাণ: ১০ হাজার টাকা বা তার গুনিতক যে কোন পরিমাণ টাকা এ প্রকল্পে জমা নেয়া হয়। জমাকৃত টাকা ৬ বছরে দ্বিগুন এবং ৯.৫ বছরে প্রায় তিনগুন হতে পারে।

মাসিক জমা ভিত্তিক মেয়াদী সঞ্চয় প্রকল্প
সঞ্চয়ের মেয়াদ: ৫ বছর, ৮ বছর, ১০ বছর ও ১২ বছর
মাসিক কিস্তির হার: ২০০, ৩০০, ৫০০, ১০০০, ১৫০০, ২০০০, ৩০০০, ৪০০০, ৫০০০ এবং ১০০০ টাকার এর গুনিতক ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত যে কোন পরিমাণ কিস্তির হিসাব খোলা যায়।

পেনশনভোগী জমা প্রকল্প
জমার মেয়াদ: কমপক্ষে ৫ বছর
পরিমাণ: ১ লক্ষ টাকার বিপরীতে মাসিক আনুমানিক ১০০০ টাকা মুনাফা প্রদান করা হয় (ট্যাক্স কর্তন করা হয় না।)


মুদারাবা মিলয়নিয়ার ডিপোজিট স্কীম
হিসাবের মেয়াদমাসিক জমার পরিমাণমেয়াদান্তে সম্ভাব্য প্রাপ্য টাকার পরিমাণ
৩ বছর
২৩,২০০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
৪ বছর
১৬,৪০০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
৫ বছর
১২,৭০০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
৬ বছর
১০,০২০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
৭ বছর
৭,৮২০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
 ১০ বছর
৪,৫০০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
১২ বছর
৩,৩৩০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
১৫ বছর
২,১৯০
টাঃ ১০.০০ লক্ষ
২০ বছর
১,১৭৫
টাঃ ১০.০০ লক্ষ

মুদারাবা বিশেষ সঞ্চয় (পেনশন) স্কীম
স্কীমের মেয়াদ: ৫,১০ ও ১৫ বছর
মাসিক কিস্তির পরিমাণ; ৫০০, ১০০০ ও এ গুনিতক সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা। মেয়াদ শেষে পেনশন সুবিধা।

আল-আরাফাহ্ মাসিক কিস্তি হজ্জ এজেন্ট
সঞ্চয়ের মেয়াদ: ১ বছর হতে ২০ বছর
১ বছর (১২ কিস্তি) হতে ২০ বছর (২৪০ কিস্তি) পর্যন্ত কিস্তি ভিত্তিক হজ্জ একাউন্ট

সঞ্চয়কারীদের  জন্য স্পেশাল অফার
প্রাক্কলিত মুনাফার হার
১ বছর মেয়াদী জমার জন্য
১২%-১৪%
৬ মাস মেয়াদী জমার জন্য
১২%-১৪%
৩ মাস মেয়াদী জমার জন্য
১২%-১৪%
১ মাস মেয়াদী জমার জন্য
১২%-১৪%

মুদারাবা বিশেষ নোটিশ হিসাবের ক্ষেত্রে নিয়মাবলী
চুক্তির শর্তাবলী
  • মুদরাবা বিশেষ নোটিশ হিসাব (MSND) অর্থ জমাকারী গ্রাহক এবং আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড এর মধ্যে সম্পাদিত ইসলামী শরীয়াহ্ ভিত্তিক একটি মুদারাবা চুক্তি।
  • এখানে অর্থ জমাকারী গ্রাহক হচ্ছে ‘সাহিবুল-মাল’ (অর্থের মালিক) এবং ব্যাংক হচ্ছে ‘মুদরিব’(ব্যাবসা পরিচালনাকারী)
  • ইসালমী শরীয়াহ্ নির্দেশিত মুদারাবা নীতিমালার ভিত্তিতে ব্যাংক এ অর্থ জমা গ্রহণ করে এবং শরীয়াহ্ সম্মতভাবে বিনিয়োগ করে।
  • ব্যাংক মুদারাবা তহবিল বিনিয়োগ করে প্রাপ্ত আয়ের শতকরা ৭০ ভাগ মুদারাবা জমাকারীদের মধ্যে ওয়েটেজ ভিত্তিতে বন্টন করে। বিনিয়োগ লোকসান হলে মুদারাবা জমাকারীগণ তা বহন করেন।
  • এ ছাড়া উক্ত হিসাবের জন্য মুদারাবা চুত্তির অন্যান্য শর্তাবলী প্রয়োজন হয়।

হিসাব পরিচালনার নিয়মাবলী
  • প্রাথমিকভাবে সর্বনিম্ন টাকা ৫,০০০ বা তার অধিক অংকের অর্থ জমা করে এই হিসাব খোলা যায়। ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত সর্বনিম্ন স্থিতি টাকা ৫,০০০ টাকা এর নীচে নেমে গেলে কোন মুনাফা প্রদান করা হয় না। অধিকন্তু, প্রযোজ্য হারে ন্যূনতম সরকারী শুল্কের সমপরিমাণ টাকার স্থিতি সংরক্ষণ করতে হয়, অন্যথায় ব্যাংক যে কোন চেক ফেরৎ দেয়ার অধিকার সংরক্ষণ করে।
  • হিসাব খোলার সময় ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, পাসপোর্ট/ জাতীয় পরিচয়পত্র/ ওয়ার্ড কমিশনার কিংবা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব সনদ বা নিয়োগকর্তা কর্তৃক প্রদত্ত পরিচিতিপত্র অথবা ব্যাংক/ আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিকট গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি কর্তৃক প্রদত্ত প্রত্যয়নপত্র প্রদান করতে হয়।
  • শুধুমাত্র সুস্থ মস্তিস্ক ও প্রাপ্ত বয়স্ক কোন ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গ, একক বা যৌথ নামে যে কোন সরকারী সংস্থা, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, ক্লাব, এসোসিয়েশন, আর্থ-সামাজিক প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এ হিসাব খুলতে পারে।
  • হিসাব খোলার সময় ব্যাংকের নিকট গ্রহণযোগ্য কোন গ্রাহক/ব্যক্তির দ্বারা পরিচিতি প্রদান করতে হয়।
  • গ্রাহককে প্রথম চেক বইয়ের জন্য হিসাব খোলার আবেদন ফরমে ‘চেক বই ইস্যুর চাহিদাপত্র’ অংশটুকু পূরণ করতে হয় এবং পরবর্তী সময়ে চেক বইয়ে সরবরাহকৃত রিকুইজিশন স্লিপ এর মাধ্যমে নতুন চেক বইয়ের জন্য আবেদন করতে হয়।
  • ব্যাংক প্রদত্ত চেক বই হারিয়ে গেলে বিষয়টি নিকটস্থ থানায় সাধারণ ডায়েরীভূক্ত করে উহার সত্যায়িত কপিসহ হিসাবধারী ব্যক্তিগতভাবে সংশ্লিষ্ট শাখায় উপস্থিত হয়ে একটি নতুন চেক বই ইস্যু করার জন্য লিখিত অনুরোধপত্র দাখিল করবেন। কোন অবস্থাতেই হারানো চেক বই এর পরিবর্তে নতুন চেক বই গ্রাহক ছাড়া তৃতীয় ব্যক্তির নিকট (হিসাবধারী কর্তৃক লিখিত ক্ষমতাপ্রাপ্ত হলেও) হস্তান্তর করা হবে না। উক্ত অনুরোধপত্রে প্রদত্ত স্বাক্ষর শাখা ব্যবস্থাপক কর্তৃক নিরীক্ষান্তে সঠিক প্রতীয়মান হলে তিনি নিজ স্বাক্ষরে সত্যায়িত করবেন। শাখার কোন মূল্যবান গ্রাহকের ক্ষেত্রে শাখা ব্যবস্থাপক ব্যক্তিগতভাবে চেক হারানোর বিষয়ে সততা সম্পর্কে নিশ্চিত হলে থানায় জিডি এন্ট্রির/ ব্যক্তিগত উপস্থিতির শর্ত শিথিল করা যেতে পারে।
  • উক্ত হিসাবে বছরে দুইবার (জুন বা ডিসেম্বর মাসে) সাময়িক হারে মুনাফা প্রদান করা হয়, যা বার্ষিক চূড়ান্ত লাভ/ লোকসান হিসাবের ভিত্তিতে সমন্বয়/ নিষ্পন্ন করা হয়।
  • বার্ষিক লাভ লোকসান হিসাব চূড়ান্ত হওয়ার পূর্বে হিসাব বন্ধ করলে সাময়িক হারে মুনাফা প্রদান করা হয়, পরবর্তীকালে মুনাফার চূড়ান্ত হার ঘোষণার পরে ঘোষিত হার সাময়িক হারের চেয়ে বেশী হলে তা হিসাবধারকের সঞ্চয়ী হিসাবে/ পে-অর্ডারের মাধ্যমে প্রদান করা হয়। ঘোষিত চূড়ান্ত হার সাময়িক হারের চেয়ে কম হলে ব্যাংকের পক্ষ থেকে কোন দাবী থাকে না।
  • এ হিসাবের ক্ষেত্রে মাসের যে কোন তারিখে লেনদেন চলাকালীন সময় অর্থ জমা করা যায়। জমাকৃত অর্থের উপর দৈনিক স্থিতির ভিত্তিতে মুনাফা প্রদান করা হয়।
  • এ হিসাব হতে অর্থ উত্তোলন করতে হলে ন্যূনতম ৭ দিনের নোটিশ প্রদান হয়। ন্যূনতম ৭ দিনের পূর্বে নোটিশ প্রদান করা হয়। ৩০ দিনের মধ্যে লিখিত কোন অভিযোগ না পেলে হিসাবের স্থিতি সঠিক আছে বলে ধরে নেয়া হয়। বৎসরে দুই বারের বেশী সনদ গ্রহণ করতে হলে প্রযোজ্য হারে চার্জ প্রদেয় হয়।
  • ব্যাংক কর্তৃক ইস্যুকৃত চেক ছাড়া সাধারণত: অন্য কোন মাধ্যমে টাকা তোলা যায় না।
  • গ্রাহকের হিসাব ব্যাংক সতর্কতার সাথে আকলন/ বিকলন করে। ভুলবশত: কোন অর্থ আকলিত/ বিকলিত হলে ব্যাংক তা সংশোধন করার অধিকার সংরক্ষণ করে।
  • কোন জমার উপর গ্রাহকের হিসাব থেকে ব্যাংক যাকাত প্রদান করে না। গ্রাহককে নিজ দায়িত্বে যাকাত প্রদান করতে হয়।
  • হিসাব ধারক অব্যবহৃত চেক বই ফেরৎ দিয়ে যথাযথ ভাবে আবেদন করে হিসাব বন্ধকরণ বাবদ নির্ধারিত ফিস জমা দিয়ে হিসাব বন্ধ করতে পারে।
  • ব্যাংক কোনরূপ কারণ দর্শানো/ নোটিশ প্রদান ছাড়াই যে কোন হিসাব বন্ধ করতে পারে।
  • হিসাবধারকের ঠিকানার কোন পরিবর্তন হলে অবিলম্বে তা ব্যাংককে জানাতে হয়। ব্যাংক সাধারণত ডাক/ কুরিয়ার যোগে হিসাব মালিকের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে। ডাক/ কুরিয়ার যোগে প্রেরিত কোন চিঠিপত্র যথাক্রমে বা আদৌ বিলি না হলে ব্যাংক দায়ী থাকে না।
  • উক্ত হিসাব হতে সরকারী নিয়মানুযায়ী ভ্যাট, কর বা শুল্ক কর্তন করা হয়।
  • এ হিসাব হতে মিনিমাম ব্যালেন্স ফি/ ইনসিডেন্টাল চার্জ/ লেজার ফি/ সার্ভিস চার্জ আদায় হয় না। শুধুমাত্র ষান্মাসিক ভিত্তিতে একাউন্ট মেইনটেন্যান্স ফি এবং হিসাব বন্ধের ক্ষেত্রে হিসাব বন্ধকরণ চার্জ প্রযোজ্য হারে প্রদেয় হয়। হিসাব ধারক/ হিসাব ধারকগণ কর্তৃক তার/ তাদের মৃত্যুর পর জমাকৃত টাকা প্রদানের জন্য নমিনী মনোনীত করতে পারে। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট হিসাবের জমাকৃত অর্থ উত্তোলনের জন্য নমিনী/ নমিনীগণকে তাঁর/ তাদের আবেদনপত্রের সাথে নিম্নলিখিত কাগজপত্র/ দলিলাদি দাখিল করতে হয়।
  • ক) হিসাব ধারকের মৃত্যুজনিত সনদপত্র। প্রবাসে মৃত্যুজনিত সনদপত্র সংশ্লিষ্ট দেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস/ কনসাল অফিস কর্তৃক প্রতিস্বাক্ষরিত হতে হয়।
খ) জাতীয় পরিচয়পত্র।
গ) নমিনী/ নমিনীগণের পরিচিতি স্বপক্ষে ব্যাংকের আস্থাভাজন দুজন সম্মানীত গ্রাহক অথবা ব্যাংকের দুজন কর্মকর্তা অথবা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/ সিটি কর্পোরেশন বা মিউনিসিপ্যালিটির ওয়ার্ড কমিশনার কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র।
ঘ) নমিনী/ নমিনীগণের পাসপোর্ট আকারের সত্যায়িত ছবি।
ঙ) নমিনী/নমিনীগণ কর্তৃক ইনডেমনিটি বন্ড প্রদান।  
  • কোনরূপ চুক্তি না থাকলে দুই বা ততোধিক ব্যাক্তির নামে পরিচালিত হিসাবের হিসাবধারীদের মধ্যে এক বা একাধিক ব্যক্তির মৃত্যু হলে প্রাপ্য অর্থ আইন ও বিধি মোতাবেক জীবিত গ্রাহক/ নমিনীগণ পেয়ে থাকে। উক্ত হিসাব/ হিসাবের সাথে সংশ্লিষ্ট কোন বিনিয়োগের টাকা ব্যাংকের পাওনা থাকলে জীবিতগণ তা পরিশোধ করতে বাধ্য থাকে।
  • যে সব হিসাবে আদালতের ক্রোকাদেশ (Attachment order) রয়েছে অথবা হিসাব পরিচালনার ক্ষেত্রে যথাযথ আদালত বা অন্য কোন সংশ্লিষ্ট কর্তৃকপক্ষের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সে সব হিসাব পৃথকভাবে চিহ্নিত থাকে এবং উল্লেখিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত হিসাব পরিচালনা বন্ধ থাকে।
  • হিসাবধারীর নিকট ব্যাংকের কোন পাওনা থাকলে হিসাব রক্ষিত  জমা স্থিতির উপর ব্যাংক, সাধারণ পূর্বশর্ত অথবা অন্য কোন ন্যায়সঙ্গত অধিকার প্রয়োগ করার এবং তা প্রয়োগের মাধ্যমে ব্যাংকের পাওনা পরিশোধের অধিকার সংরক্ষণ করে।
  • সরকার, আদালত, কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা অন্য কোন যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক আদিষ্ট হলে গ্রাহকের অনুমতি ব্যতীত ব্যাংক গ্রাহকের হিসাব সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যাদি প্রদান করতে পারে।
  • মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, সন্ত্রাস বিরোধী আইন ও বাংলাদেশ ব্যাংকের মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ বিভাগ কর্তৃক সময়ে সময়ে জারীকৃত সার্কুলার/ নীতিমালা অনুযায়ী গ্রাহক ব্যাংকের চাহিদা মোতাবেক তথ্য সরবরাহ করতে এবং তদানুসারে হিসাব পরিচালনা করতে বাধ্য থাকে।
  • ১৯১১ সালে ব্যাংক কোম্পানী আইন অনুযায়ী ১০ বছর ও তদুর্ধ্ব মেয়াদ পর্যন্ত কোন হিসাবে লেনদেন না হলে সংশ্লিষ্ট হিসাবটি আদাবীকৃত (Unclaimed) হিসাবে গণ্য করে উক্ত হিসাবের স্থিতি বাংলাদেশ ব্যাংকে স্থানান্তর করে দেয়া হয়।
  • উপরোক্ত নিয়মাবলী ছাড়াও হিসাব সংক্রান্ত কোন বিরোধ/ জটিলতার উদ্ভব হলে বিষয়টি দেশের প্রচলিত আইন ও বিধি অনুসারে নিষ্পত্তি করা হয়।
  • ব্যাংক সুনির্দিষ্ট প্রয়োজনানুসারে এ হিসাব সংক্রান্ত কোন নিয়মাবলীর পরিবর্তন, পরির্ধন, সংশোধন বা বাতিল এবং নতুন  কোন নিয়ম/ নিয়মাবলী অন্তুর্ভুক্ত করতে পারবে যে হিসাবধারী/ ধারীগণ মেনে চলতে বাধ্য থাকতে হয়।

ব্যাংকের শাখাগুলো

শাখা
ঠিকানা
যোগাযোগ
মতিঝিল১৬১, মতিঝিল বা/এ, ঢাকা- ১০০০ফোন: ৯৫৬৯৩৫০
ভি আই পি রোড৮৬, ইনার সার্কুলার (ভিআইপি) রোড, কাজী টাওয়ার, ঢাকা- ১০০০ফোন: ৯৩৪৫৮৭১-২
মতিঝিল কর্পোরেট১২৫, মতিঝিল বা/এ ঢাকা- ১০০০ফোন: ৭১৬০৮০৮
নবাবপুর রোড৮৫/৮৭, নবাবপুর রোড, ঢাকা- ১১০০ফোন: ৯৫১৫৯৬৯
নর্থ সাউথ রোড৯৬, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম স্মরণী, বংশাল, ঢাকা- ১১০০ফোন: ৭১৬৭৬৮২-৩
উত্তরা মডেল টাউনবাড়ি: ১৩, রোড: ১৪/এ, সেক্টর: ৪, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা- ১২৩০ফোন: ৮৯১৬৪৫৪
নিউ এ্যালিফ্যান্ট রোড৯১, এ্যালিফ্যান্ট রোড, ঢাকা- ১২০৫ফোন: ৯৬৬৫৩২৩-৪
বনানী১৬, কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, ঢাকাফোন: ৮৮১০৪১৯
মিরপুর৫/ এইচ.জি দারুস সালাম রোড, মিরপুর ১, ঢাকা- ১২১৬ফোন: ৯০০৮১২৩
মৌচাক৭৬, ডি.আই.টি রোড, মালিবাগ, ঢাকা- ১২১৭ফোন: ৯৩৩৯০০৬
ধানমন্ডি৫৪/১, রোড: ৪/এ, সাত মসজিদ রোড, ধানমন্ডি, ঢাকা- ১২০৯ফোন: ৮৬১০৯১৩
মোহাম্মদ কৃষি মার্কেট৩২/৮ক, তাজমহল রোড, মোহাম্মপুর, ঢাকা- ১২০৭ফোন: ৯১৪২৭৩২
দিলকুশা৬৩, দিলকুশা বা/এ, (গ্রাউন্ড ফ্লোর), ঢাকা- ১০০০ফোন: ৯৫৫৯০৬৩
ইসলামপুররওশন প্লাজা, ২৯-৩১, ইসলামপুর রোড, ঢাকা- ১১০০ফোন: ৭৩৯৩৮০০
প্রগতীস্মরণীগ-১৩৩/৩, প্রগতি স্মরণী, মধ্যবাড্ডা, ঢাকা- ১২১২ফোন: ৯৮৬৩৩১৭
যাত্রাবাড়ী৬, শহীদ ফারুক সড়ক, পশ্চিম যাত্রাবাড়ী, ঢাকা- ১২০৪ফোন: ৭৫৫৪৫১০
কোনাপাড়ামাতুয়াইল নিউ মার্কেট ভবন, কোনাপাড়া, ডেমরা,ঢাকাফোন: ৭৫৫৪৪৮৬৩
গুলশানহোসনা সেন্টার, ১০৬, গুলশান এভিনিউ, ঢাকাফোন: ৯৮৮৬২৭১
মান্ডা৯৬, উত্তর মান্ডা, ঢাকাফোন: ৭২৭৭৭৭২
হাজারীবাগ১৪৯, হাজারীবাগ বাজার, ঢাকা ১২০৯ফোন: ৯৬১১৭৫৯
খিলক্ষেতবি- ৩৪/ক, খিলক্ষেত সুপার মার্কেট, খিলক্ষেত, ঢাকাফোন: ৮৯৫৪৮৬০
মিরপুর ১০ গোলচত্বর২৭, দেওয়ান ম্যানশন, মিরপুর ১০, ঢাকাফোন: ৯০১১৭৬৬
দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী৩১৪/এ, দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী, ঢাকাফোন: ৭৫৪৫১৬১
দক্ষিণখানএল কে প্লাজা, দক্ষিণখান বাজার, ঢাকামোবাইল: ০১৮৩৩৩৩০২৭৩
নতুন বাজার বারিধারানতুন বাজার, নুরের চালা, ঢাকামোবাইল: ০১৮১১৪৮৭৮৬১
শ্যামলী১৩/১, রিং রোড, শ্যামলী, ঢাকামোবাইল: ০১৬৮০০৬৭৯১১

Comments

Popular posts from this blog

How to Type Bangla & Arabic Unicode Font in Adobe InDesign CC 2018

বাংলা ইউনিকোড ফন্ট তৈরির প্রক্রিয়া (পর্ব-২)

ইউনিকোডে বর্ণে র-য ফলা, মাত্রা, রেফ, এবং যাবতীয় সংযুক্ত বর্ণ টাইপ করলে মনিটরে সঠিক ভাবে দেখায় এই সব তৈরিতে প্রধান ভূমিকা পালন করে ওপেন টাইপ ফিচার । ওপেনটাইপ প্রযুক্তির কল্যাণে আমরা ক(্)ক=ক্ক, ল(্)ল=ল্ল, ম(্)ম=ম্ম, ক(্)ষ=ক্ষ, হ(্)ম=হ্ম ইত্যদি সংযুক্ত বর্ণ  টাইপ করলে দেখতে পাই। বাংলা ভাষায় যতগুলো যুক্তাক্ষর আছে তার সবগুলো ফন্টে যোগ করা যাবে। ওপেনটাইপ পদ্ধতি উদঘাটিত না হলে হয়তো বাংলা  ইউনিকোড ফন্টটে যুক্তাক্ষর জন্য হয়তো আজও আমার ইউনিকোড ফন্ট ব্যবহার করতে পারতাম না। ইউনিকোড ফন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে অতান্ত গুরুত্ব পুন্য অংশের একটি ওপের টাইপ ফিচার। ওপেনটাইপ ফন্ট কোনো পরিবর্তন ছাড়াই উইন্ডোজ, লিনাক্স  ও  ম্যাক অপারেটিং সিস্টেমে ওয়েব ব্রাউজার  যে কোন অবস্থায় লিখতে পারবেন।   অ্যাডোবি তাদের সর্বশেষ সংস্করণে Adobe Middle East & North Africa CS5 / CS 6 / CC বাংলা ইউনিকোড বাংলা  ফন্ট সমর্থন করে এবং আপনার যদি অ্যাডোবির অন্য সংস্করণ ব্যবহার করে থাকেন তাহলে CS4/CS5 এই ইউনিকোডে বাংলা লেখার জন্য এই লিঙ্ককে দেখতে পারেন।
ওপেনটাইপ ফিচার যোগ করার জন্য "Microsoft VOLT" অসাধারণ ওপেনটাইপ …

কুরআন প্রেমী মুসলিম ভাই ও বোনদের জন্য এন্ড্রোইড ফোনে মাত্র ৭০/৮০/৯০ এমবিতে সম্পূর্ণ কুরআন

কুরআন প্রেমী মুসলিম ভাই ও বোনদের জন্য এন্ড্রোইড ফোনে মাত্র ৭০/৮০/৯০ এমবিতে সম্পূর্ণ কুরআন

আপনার নিজের এন্ড্রোইড ফোনে মাত্র ৭০/৮০/৯০ এমবিতে সম্পূর্ণ কুরআন তেলাওয়াত ইনস্টল করে শুনতে থাকুন। পবিত্র কা'বা শরীফের ইমামসহ বিশ্ববিখ্যাত ক্বারীদের তেলাওয়াত পাবেন সাধারণত ৭০ এমবির মধ্যেই। আর সেটা আপনার এন্ড্রোইড ফোনের এপসের মাধ্যমেই। কষ্ট করে আর মোবাইলের মেমোরি কার্ডে কয়েকশত এমবি কুরআনের অডিও বয়ে নিয়ে বেড়াতে হবে না।






তাহলে আর দেরী কেন? এখনই এপসগুলো ইনস্টল করে নিন এবং অন্যদের মাঝে বেশি বেশি শেয়ারইটের মাধ্যমে সেগুলো ছড়িয়ে দিয়ে সাদাকায়ে জারিয়াহর একটা রাস্তা উন্মুক্ত করে দিন। এগুলো আপনার জন্য সাদাকায়ে জারিয়াহ হিসেবে গণ্য হবে ইনশাআল্লাহ। আপনার পরিচিতদের মাঝে সবার কাছেই এভাবে পবিত্র কুরআনের এপস ছড়িয়ে দিন। আশা করি, এগুলো সবারই ভালো লাগবে এবং তারা সেগুলো শুনলে কিংবা তাদের মাধ্যমে অন্য কারো কাছে যাওয়ার পর তারাও যদি সেগুলো শুনে তাহলে সবার সাওয়াব বাই ডিফল্ট আপনার নিজের আমলনামায় copy হিসেবে (cut হিসেবে নয়) চলে আসবে ইনশাআল্লাহ।

কা'বা শরীফের ইমাম আব্দুর রহমান আস সুদাইসের সম্পূর্ণ কুরআনের এপস [৭৬ এমবি]


Downlo…

ইসলামী প্রয়োজনীয় ৫টি অ্যাপ

ইসলামী প্রয়োজনীয় ৫টি অ্যাপ 

১. অর্থপূর্ণ নামায (সালাত) শব্দসহ

:::::এতে আছে::::::

১। সলাতে(নামাযে) পঠিত সূরা, তাসবিহ, দোআর অর্থ

২। সূরা ফাতিহাহ এবং শেষ ১৩ সূরা

৩। শব্দে শব্দে অনুবাদ, গভীর শাব্দিক এনালাইসিস ও তাফসির আহসানুল বায়ান

৪। সলাতের ওয়াক্ত, ওয়াক্ত নোটিফিকেশান এবং কিবলা

৫। Pinch zoom করে মন মত ফন্ট সাইজ পরিবর্তন করে নিন

৬। ছবি ও লেখা শেয়ার করার সুবিধা

৭। কোন অ্যাড নেই!

৮। নামাযের সময়সূচী দেখার জন্য উইজেট সুবিধা








Download Link








২. দোআ ও যিকির (হিসনুল মুসলিম)

এতে আছে :-
------------------

• ঘুমানোর, ঘুম থেকে ওঠার, পোশাক পরা ও খোলার, পায়খানার, ওযুর, নামাযের, মসজিদের, ইস্তিখারার দো'আ (দুয়া বা দুআ) ও সকাল ও বিকালের যিকর (বা জিকির)

• কুরআন ও হাদিসের ২৫০ ও বেশি দোআ ও যিকির

•  আপনার পছন্দের দোআ সেভ করে রাখুন

What are Thumbs.db Files and Can I Delete Them? (Windows)

Got thumbs.db in Windows Explorer? Here's what they are and what you can safely do with them.

I spend a good amount of time in Windows Explorer doing various tasks. Every now and then I run across a file I'm not familiar with and I'm not sure what to do with. Thumbs.db is a good example, it has an odd extension: .db.
You won't see any thumbs.db files unless you've checked "Show Hidden Files and Folders" in the Folder Options panel and are using the icon mode in Explorer, so if you haven't seen them that's probably why. :)
Thumbs.db is much like its name. It stores graphics, movie, and some document files then generates a preview of the folder contents using a thumbnail cache.
These folders are generated automatically by Windows so that folder content doesn't need to be recalculated every time the folder is viewed.



You can disable thumbs.db from being created, which can be useful if you are low on disk space. I've used both modes (enabled and di…

হজ্ব সম্পর্কিত তথ্য নিয়ে প্রশ্নোত্তর

হজ্ব মুসলিম উম্মাহর সর্বোত্তম ইবাদত। ইচ্ছা করলেই কেউ হজে যেতে পারে না। হজের জন্য সর্ব প্রথম শর্তই হলো আর্থিকভাবে সামর্থ থাকতে হবে। অতঃপর শারীরিক সক্ষমতা লাগবে। আর মানসিক প্রস্তুতিও হজের জন্য আবশ্যক বিষয়। হজ হলো আল্লাহ তাআলা কিছু অনন্য নিদর্শন স্বচক্ষে দেখার জন্য পবিত্র নগরী মক্কা মুকাররমার ওই সব স্থানে স্বশরীরে উপস্থিত হওয়া এবং যথাযথ মন নিয়ে পালন করার নাম। ওই সব নিদর্শন তারই হুকুম পালনকারী প্রিয় বান্দা নবি-রাসুলদের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা স্মৃতি স্মারক বা ঘটনা। যে ঘটনাগুলো আল্লাহ তাআলার অনেক পছন্দ হয়ে যায়। আর তার পরিদর্শনকে আল্লাহ তাআলা ইসলামের রোকন হিসেবে সাব্যস্ত করেন। হজের নিদর্শন সম্পর্কিত কিছু তথ্য প্রশ্নোত্তর আকারে তুলে ধরা হলো- >> পবিত্র কাবা শরিফ কে তৈরি করেছেন?
উত্তর : হজরত ইবরাহিম আলাইহি সালাম পবিত্র কাবা শরিফ নির্মাণ করেন। কাবার স্মৃতি চিহ্ন মুছে যাওয়ার পর আল্লাহর নির্দেশে তিনি হজরত ইসমাইলকে সঙ্গে নিয়ে কাবার জন্য নির্ধারিত স্থানেই কাবা নির্মাণ করেন।

>> পবিত্র কাবা শরিফের চারদিকে তাওয়াফ করতে কোন দিককে নির্দেশ করা হয়েছে?
উত্তর : কাবা শরিফকে বাম দিকে তাওয়াফ করতে হবে। সহজে…

How to Create Easily Bangla Unicode Font? (1)

বাংলা ইউনিকোড ফন্ট তৈরির প্রক্রিয়া (পর্ব-১)

টাইপোগ্রাফী কাজটা বড় কঠিন কাজ বিশেষ করে বাংলা ফন্টর তৈরি করার ক্ষেত্রে প্রায় বাংলা ৫০০-৬০০ অক্ষর এবং যুক্তাক্ষর এর একটা বিরাট অংশ নিয়ে কাজ করতে হয়। নতুন ফন্ট মানে নতুন ডিজাইনের নতুন ফন্ট তৈরি করা এই কাজটি আর্টিষ্টিরা অতি সহজেই করতে পারবেন। প্রথমেই সব ধরণের অক্ষরের একটা তালিকা তৈরী করে নিন।
তালিকায় যেসব অক্ষর থাকবে তা হলোঃ- ১. সবগুলো মৌলিক অক্ষর (সংখ্যা আকার ও কার সহ) ২. হসন্তযুক্ত ব্যঞ্জনবর্ণ। ৩. ব্যঞ্জনবর্ণের অর্ধরূপ।(যদি কতেচান করতে পারেন দেখতে সুন্দর দেখার যাবে) ৪. সকল যুক্তাক্ষর গোছানো ভাবে ৫. ইংরেজি অক্ষর (যদি রাখতে চান)
ভেক্টর আঁকার জন্য সফ্টওয়্যার ব্যবহার করা হয়:- Adobe IllustratorCorelDRAWInkscapeফন্ট তৈরীর জন্য:- FontLabHigh-Logic FontCreatorFontForge আমি ব্যবহার করি Adobe Illustrator, Font Lab নিচের ছবিতে দেখুন গ্লিফ ইনডেক্সঃ- বাংলা অক্ষর, যুক্তাক্ষর ইত্যাদি গ্রাফ পেপার অঁকন করতে হবে। স্ক্রীনিং করে ভেক্টর আঁকার জন্য ইলেস্ট্রার এর Pen Tool দিয়ে অঁকন করতে হয়। এই কাজ করার জন্য ইলেস্ট্রার এর উপর অভিগতার দরকা। গ্লিফ অঁকন করার এবং সাইজ এর জন্য এই লিংক ডাউনলোডকরুন ইলেস্ট্রার ফাইল নিচ…

Divi Elegant Themes 100 - The countdown to Divi 3.0